Home > বন্দর নগরী > হরতালের প্রভাব নেই চট্টগ্রামে

হরতালের প্রভাব নেই চট্টগ্রামে

জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানসহ আট নেতাকে গ্রেপ্তার ও রিমান্ডের প্রতিবাদে সারা দেশে দলটির ডাকা সকাল-সন্ধ্যার হরতাল চলছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে বন্দরনগরী চট্টগ্রামসহ সারা দেশে হরতাল চলছে। তবে চট্টগ্রামের কোথাও হরতালের প্রভাব দেখা যায়নি। অন্যান্য কর্মদিবসের মতো স্বাভাবিকভাবে চলছে যানবাহন। বিভিন্ন সড়কের মোড়ে মোড়ে যানজটও দেখা গেছে। চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে যাচ্ছে দূররপাল্লার পরিবহনও।

বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রামের বেশ কয়েকটি এলাকা থেকে ঘুরে দেখা যায়, রাস্তায় সব ধরনের যানবাহন চলাচল করছে। হরতালকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের বিভিন্ন পয়েন্টে সকাল থেকে মোতায়েন করা হয়েছে বাড়তি পুলিশ। গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলোতে পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাব সদস্যদের উপস্থিতিও লক্ষ্য করা গেছে।

তবে জামায়াতের কোনো নেতাকর্মীকে রাজপথে দেখা যায়নি। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে যানবাহনও। রাস্তায় বাড়ছে মানুষও। দোকানপাটও খুলতে শুরু করেছে।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হরতালের সমর্থনে দলটির নেতাকর্মীরা চট্টগ্রামের যেসব সম্ভাব্য স্থানে বিক্ষোভ করতে পারে সেসব স্থানে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা।

এদিকে, হরতালের আগের রাতে নগরীর কোতয়ালি থানার দেওয়ানবাজার এলাকায় ঝটিকা মিছিল থেকে গাড়ি ভাংচুরের তথ্য দিয়েছেন স্থানীয়রা। তবে পুলিশ বলছে, হামলাকারীরা হরতাল সমর্থক কি না তারা জানেন না। তবে ভাংচুরের পর ছাত্রলীগের স্থানীয় নেতাকর্মীরা এলাকায় হরতাল বিরোধী মিছিল করেছেন।

বুধবার (১১ অক্টোবর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে এই ঘটনা ঘটেছে।

ঘটনাস্থলে থাকা কোতয়ালি থানার এস আই আব্দুর রহিম বলেন, কে বা কারা হঠাৎ করে দেওয়ানবাজারের সাব-এরিয়ায় রাস্তায় নেমে গাড়ি ভাংচুর করেছে। কয়টি গাড়ি ভাংচুর হয়েছে সেটা জানতে পারিনি। আমরা ঘটনাস্থলে এসে গাড়িও পাইনি, ভাংচুরকারীদের কাউকেও পাইনি।

উল্লেখ্য, জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদসহ আট নেতাকে গ্রেপ্তার ও রিমান্ডের প্রতিবাদে মঙ্গলবার সারা দেশে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করে দলটি। কর্মসূচির অংশ হিসেবে বুধবার সারা দেশে বিক্ষোভ এবং বৃহস্পতিবার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যার হরতাল ও শুক্রবার দোয়া দিবস পালন করবে তারা।মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান এসব কর্মসূচির ঘোষণা দেন।

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, হাসপাতাল, অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, সংবাদপত্রেরগাড়ি এবং ওষুধের দোকান হরতালের আওতামুক্ত থাকবে।

সিটিজিনিউজ২৪ডটকম/এডিটর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *