Home > খেলা > চিটাগংয়ের বিপক্ষে জয়ে ফিরল ঢাকা ডায়নামাইটস

চিটাগংয়ের বিপক্ষে জয়ে ফিরল ঢাকা ডায়নামাইটস

ঢাকা পর্বের শেষ ম্যাচেই খেই হারিয়ে ফেলেছিল ঢাকা ডায়নামাইটস। তারকাভর্তি দল নিয়েও ওই ম্যাচে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কাছে হেরেছিল সাকিব আল হাসানের দল। চট্টগ্রামে এসেও ভাগ্য বদলাতে পারেনি সাকিব-আফ্রিদিরা। অবশেষে এই চট্টগ্রামেই স্থানীয় দল চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে জয়ে ফিরেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।

এভিন লুইস, জো ডেনলি, সাকিব আল হাসান এবং ক্যামেরন ডেলপোর্টের ব্যাটিং তাণ্ডবে চিটাগং ১৮৭ রান করেও জিততে পারলো না। উল্টো ৭ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটের বিশাল জয় তুলে নিলো সাকিব আল হাসানের দল।

আাজকের ম্যাচের আগে ৮ ম্যাচ খেলে চিটাগংয়ের জয় মাত্র ২টিতে। ঢাকার বিপক্ষে এই ম্যাচে জিততে পারলে শেষ চারে যাওয়ার রেসে নিজেদের টিকিয়ে রাখার একটা সম্ভাবনা ছিল; কিন্তু আজকের ম্যাচটিও হেরে গেল চিটাগং ভাইকিংস। গ্রুপ পর্ব শেষ হওয়ার আগে হাতে আছে আর মাত্র ৩টি ম্যাচ।

শেষ চার খেলতে হলে চিটাগং পড়ে গিয়েছে কঠিন সমীকরণের সামনে। বাকি তিনটি ম্যাচ তো জিততেই হবে, সঙ্গে অন্য দলগুলোর ফলাফলের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে। কারণ, শেষ চারে ওঠার সম্ভাবনা যে এখন তাদের নানান জটিল সমীকরণের সুতোয় ঝুলতে শুরু করেছে! হেরে গেলে গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় অনেকটা নিশ্চিত, এমন কঠিন সমীকরণ জানার পরও ব্যাট হাতে বিশাল স্কোর গড়েও, লুইস-ডেলপোর্টদের রুখতে পারেননি তাসকিন-সৌম্যরা।

চিটাগংয়ের ছুঁড়ে দেয়া ১৮৮ রান তাড়া করতে নেমে ১৮.৫ ওভারেই বলে মাত্র ৩ উইকেটে হারিয়ে ১৯১ রান সংগ্রহ করে ঢাকা ডায়নামাইটস। এভিন লুইসই মূলতঃ চিটাগংয়ের সব আশা শেষ করে দিয়েছেন। ৩১ বলের ঝড়ে তার ব্যাট থেকে আসে ৭৫ রান। একের পর ছক্কা মেরেছেন শুধু। সব মিলিয়ে তার ইনিংসে ছক্কার মার ৯টি। আর বাউন্ডারি মেরেছেন কেবল ৪টি।

১৮৮ রানের লক্ষ্যে ঢাকা ব্যাট করতে নামার পর প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই আঘাত হানেন তাসকিন আহমেদ। শূন্য রানেই তিনি ফিরিয়ে দেনে বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান শহিদ আফ্রিদিকে। তবে এ ধাক্কা মোটেও টলাতে পারেনি ঢাকা ডায়নামাইটসকে। চিটাগংয়ের বোলারদের ওপর এরপর তাণ্ডব শুরু করে দেন লুইস-ডেনলি জুটি। তাদের ব্যাট থেকে আসে ১১৮ রানের মারদাঙ্গা একটি জুটি।

এভিন লুইসের ঝড়ো ইনিংসটি থামে ৭৫ রানে। দলীয় রান তখন ১১৯। তার সঙ্গী থাকা জো ডেনলিও ফিরে যাদ তাড়াতাড়ি। তার ব্যাট থেকে আসে ৩৯ বলে ৪৪ রান। ইনিংসটি তিনি সাজান একটি ছক্কা ও ৪টি চারের সাহায্যে।

তবে ঢাকার হয়ে জয়ের শেষ কাজটি করেন ক্যামেরন ডেলপোর্ট এবং অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এ দু’জনে মিলে দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান। ডেলপোর্ট অপরাজিত ছিলেন ৪৩ আর সাকিব ছিলেন ২২ রানে অপরাজিত।

চিটাগংয়ের হয়ে তাসকিন, এমরিত ও তানবির হায়দার একটি করে উইকেট নিয়েছেন। এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে এনামুল হক বিজয়ের ৪৭ বলে করা ৭৩ রানের উপর ভর করে চিটাগং সংগ্রহ করেছিল ১৮৭ রান। বিজয় ছাড়াও অধিনায়ক লুক রনকি করেছিল ৫৯ রান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *