Home > অর্থনীতি > মোবাইল ব্যাংকিংয়ে অবৈধ লেনদেন এখন বড় মাথাব্যথা: ইব্রাহিম খালেদ

মোবাইল ব্যাংকিংয়ে অবৈধ লেনদেন এখন বড় মাথাব্যথা: ইব্রাহিম খালেদ

সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনের মত সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদও এবার মোবাইল ব্যাংকিংয়ে আর্থিক লেনদেনের দুর্নীতি নিয়ে সোচ্চার হয়েছেন।

অবৈধ আর্থিক লেনদেনকে অন্তর্ভুক্তিমূলক ব্যাংকিয়ের ‘বড় বাধা’ হিসেবে চিহ্নিত করে তিনি বলেছেন, মোবাইল ও এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে অবৈধ লেনদেন এখন গভীর উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) দুই দিনের বার্ষিক সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন সোমবার একটি সেশনের মূল প্রবন্ধে এ কথা বলেন ইব্রাহিম খালেদ। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চৌধুরীও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

ইব্রাহিম খালেদ বলেন, মুদ্রা পাচার ও অবৈধ লেনদেনের অভিযোগ ওঠায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক ইতোমধ্যে তিন হাজারের বেশি মোবাইল ব্যাংক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে।

“অবৈধ লেনদেনগুলোর বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গোয়েন্দা ইউনিট কাজ শুরু করেছে। এ ধরনের অবৈধ লেনদেন অবশ্যই খুঁজে বের করতে হবে, কারণ অর্ন্তর্ভুক্তিমূলক ব্যাংকিংয়ের বড় বাধা এসব অবৈধ লেনদেন।

“মোবাইল ও এজেন্ট ব্যাংকিং অন্তর্ভুক্তিমূলক ব্যাংকিংয়ে গুরুত্বর্প্ণূ ভূমিকা রাখলেও এখন তা গভীর উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।”

ইব্রাহিম খালেদ বলেন, গতবছর মোবাইল কোম্পানিগুলো মোবাইল ব্যাংকিংয়ের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কাছে আবেদন করে। কিন্তু বিটিআরসি কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না থাকায় ওই আবেদনে সাড়া দেয়নি বাংলাদেশ ব্যাংক।

“বাংলাদেশ ব্যাংক ফোন কোম্পানিগুলোর নিয়ন্ত্রক সংস্থা নয়। এ কারণে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মোবাইল কোম্পানিগুলোর আবেদন প্রত্যাখ্যান ছাড়া কোনও বিকল্প ছিল না।

অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনীতির জন্য ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে শক্তভাবে নিয়ন্ত্রণ করা বাংলাদেশ ব্যাংকের অন্যতম দায়িত্ব।”

এর আগে গত ২১ নভেম্বর দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সাবেক গভর্নর মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিন মোবাইল ব্যাংকিংয়ে টাকা লেনদেনে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, অর্থ লেনদেনের এই পদ্ধতিতে ‘লুটপাট ও ডাকাতি’ হচ্ছে।

“বগুড়ায় আমার এক শিক্ষককে কিছু টাকা পাঠাইতে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে গুণে গুণে ২ শতাংশ কেটে রেখেছে। তারপর টাকা তুলতে গেলে শিক্ষকের কাছ থেকেও টাকা কেটে নিয়েছে। এই রকম লুটপাট ও ডাকাতি করছে। যেহেতু কোনো নিয়ামক পরিমণ্ডল নেই, তাই কাউকে ধরা যাচ্ছে না।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *