Home > জাতীয় > প্রার্থনা ও বিশ্বাসে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান পোপ ফ্রান্সিসের

প্রার্থনা ও বিশ্বাসে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান পোপ ফ্রান্সিসের

ক্যাথলিক খ্রিষ্টানদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তাদের প্রধান ধর্মগুরু ও ভ্যাটিকান রাষ্ট্রের প্রধান পোপ ফ্রান্সিস বলেছেন, আপনারা যিশুর বাণীর মধ্য দিয়ে সামনের দিকে এগিয়ে যান। প্রার্থনা ও বিশ্বাসের মধ্য দিয়ে এগিয়ে যান। এভাবেই আপনারা একে অপরকে সহযোগিতা করতে পারেন।

শুক্রবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে খ্রিস্ট ধর্মের বিশেষ প্রার্থনাসভা ও যাজক অভিষেক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এ আহ্বান জানান তিনি। সকাল ১০টায় এ অনুষ্ঠানে শুরু হয়। এতে হাজার হাজার খ্রিস্টধর্মাবলম্বী যোগ দেন। আয়োজনকে ঘিরে নেওয়া হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন দেশের খ্রিস্টান রাষ্ট্রদূত ও কূটনীতিকরাও।

সকাল সাড়ে ৯টায় অনুষ্ঠান শুরু হলেও খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বীরা ভোর ৬টা থেকে উদ্যানে জড়ো হতে শুরু করেন। গলায় কার্ড ঝুলিয়ে প্রার্থনাসভায় যোগ দিতে আসা নানা বয়সী মানুষের চোখে-মুখে ছিল ভক্তি ও উচ্ছ্বাসের ছাপ। তাদের কাছে পোপ ঈশ্বরপুত্র যিশুর প্রতিনিধি।

সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে পোপ অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছান। এর পরপরই ঈশ্বর বন্দনায় ‘এসো তার মন্দিরে করি স্তবগান, একসাথে দলে দলে হয়ে এক প্রাণ..,’ প্রার্থনা সংগীতে শুরু হয় অনুষ্ঠান। অভিষেকের ধর্মীয় আচার চলার ফাঁকে ফাঁকে চলতে থাকে ধর্মসংগীত ও প্রার্থনা। অনুষ্ঠান শেষ হয় মা মারিয়ার বন্দনা গীতে।

আগত সবার উদ্দেশ্যে পোপ বলেন, প্রিয়জনেরা, আজকের এই শুভ দিনে, আপনারা সবাই এসেছেন, আপনাদের শুভেচ্ছা জানাই। আমি জানি, আপনারা অনেকে অনেক  দূর থেকে এখানে এসেছেন, অনেকে দুই দিনের যাত্রাপথ অতিক্রম করে এসেছেন, আপনাদের এ উদারতার জন্য অনেক অনেক ধন্যবাদ। এভাবে সামনের পথে এগিয়ে যান, পর্বতের উপর যিশুর অস্টকল্যাণ বাণীর আলোকে ও প্রেরণায়। সবার কাছে আমার বিশেষ আহ্বান, এখানে নবঅভিষিক্ত যাজকদের জন্য প্রার্থনা করুন।

এরপর শুক্রবার বিকেল ৩টা ২০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করবেন পোপ ফ্রান্সিস। বিকেল ৪টায় ক্যাথিড্রাল পরিদর্শন করবেন। ৪টা ১৫ মিনিটে রমনায় প্রবীণ যাজক ভবনে পোপের সঙ্গে বাংলাদেশের বিশপদের বিশেষ সভা হবে। সেখানে তিনি ধর্মীয় বক্তব্য ও নির্দেশনা দেবেন। বিকেল ৫টায় রমনার আর্চ বিশপ হাউস মাঠে সভায় যোগ দেওয়া কথা রয়েছে তার।

তিনদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বৃহস্পতিবার ঢাকায় আসেন পোপ ফ্রান্সিস। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বিমানবন্দরে তাকে অভ্যর্থনা জানান। এ সময় পোপকে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়।

পরে ভ্যাটিকানের রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে তিনি সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধ ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্মৃতি জাদুঘরে যান। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন পোপ ফ্রান্সিস।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *