Home > নীড়পাতা > সীতাকুণ্ডে মা-বাবাকে বেঁধে শিক্ষক ছেলেকে খুন

সীতাকুণ্ডে মা-বাবাকে বেঁধে শিক্ষক ছেলেকে খুন

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে প্রকাশ্যে মা-বাবার সামনে ছুরিকাঘাত করে ইমরান হোসেন রিয়াদ (২৮) নামের এক মাদরাসা শিক্ষক খুন করেছে সন্ত্রাসীরা। সোমবার (৭ জানুয়ারি) দিনগত রাতে দেড়টার দিকে বাসায় ঢুকে ছুরিকাঘাত করে তাকে হত্যা করা হয়।

সীতাকুণ্ড উপজেলার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন বাড়বকুণ্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশের রেলওয়ে কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ বলছে, পূর্ব শত্রুতার জেরে এ হত্যাকাণ্ড ঘতে থাকতে পারে। রিয়াদের

ইমরান ওই এলাকার রেলওয়ে কলোনির একটি বাসায় বাবা-মাকে নিয়ে থাকতেন। তার গ্রামের বাড়ি ফেনী দক্ষিণ ধনিয়া এলাকায়। তিনি সীতাকুণ্ড কামিল মাদ্রাসার শিক্ষক ছিলেন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, রাত দেড়টার দিকে নিজ বসতঘরের সামনে ৩ থেকে ৪ জন মুখোশধারী লোক ইমরানের পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

স্থানীয়দের আসেঙ্কা, ইমরানের বাসা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পাশে হওয়ায় অনেক ডাকাতির ঘটনা সে দেখে ফেলেছিল। এ কারণে ডাকাতরা তাকে হত্যা করেছে বলে ধারণা তাদের।

সীতাকুণ্ড থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘নিহত রিয়াদ রেলওয়ের স্টাফ কলোনিতে সরওয়ার হোসেনের বাসায় থাকতেন। গতকাল আনুমানিক রাত দেড়টার দিকে সরওয়ার হোসেনের বাসার দরজায় কয়েকজন লোক আঘাত করতে থাকেন। একপর্যায়ে ভেঙে ফেলার উপক্রম হলে উপক্রম হলে তিনি দরজা খুলে দেন। এসময় ৭-৮ জন লোক বাসায় ঢুকে যায়। তারা সরওয়ার ও তার স্ত্রীকে একটি কক্ষে আটকে রেখে রিয়াদকে ছুরিকাঘাত করে চলে যায়।’

তিনি আরো বলেন, ‘কি কারণে হত্যাকাণ্ড, সেই বিষয়ে পুলিশ এখনও কিছু নিশ্চিত হতে পারেনি। তবে পূর্ব শত্রুতার কারণে এ ঘটনা ঘটেঠে বলে আসঙ্কা করছি। মনে হচ্ছে এটি টার্গেট কিলিং।’

প্রসঙ্গত, গত সোমবার ৩১ ডিসেম্বর) বিকেলে সীতাকুণ্ড উপজেলার ভোলাগিরি এলাকায় শহীদ বাহিনীর ডাকাতেরা স্থানীয় ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি দাউদ সম্রাটকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। ওই ঘটনার এক সপ্তাহের ব্যবধানে আরো একটি খুন স্থানীয় বাসিন্দাদের মাঝে আতঙ্ক তৈরী করেছে।

সিটিজিনিউজ২৪.কম/কাইয়ুম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *