Home > বন্দর নগরী > শিক্ষা/ক্যাম্পাস > বাড়তি অর্থ আদায়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি!

বাড়তি অর্থ আদায়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তি!

চট্টগ্রাম : মহানগরের নামীদামি প্রতিষ্ঠানগুলো শিক্ষার্থী ভর্তির নীতিমালা না মেনে নিজেদের ইচ্ছামতো ফি আদায় করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপায়ান্তর না দেখে বাধ্য হয়ে বাড়তি অর্থ পরিশোধ করে সন্তানকে ভর্তি করছেন অভিভাবকরা। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেকে।

তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যয় বেড়েছে, তাই বাধ্য হয়ে বাড়তি অর্থ নেয়া হচ্ছে। এটা অন্যায় কিছু নয় বলে মনে করছেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।

গত নভেম্বর মাস থেকে দেশের সব বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়। লটারি ও ভর্তি পরীক্ষার পর্ব শেষে শুরু হয় ভর্তি কার্যক্রম। অভিযোগ উঠেছে, সরকারের নির্ধারিত অর্থের বেশি আদায় করে ঢাকার অনেক নামীদামি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী ভর্তি করানো হচ্ছে।

মিরপুরের মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ধানমন্ডির জুনিয়র ল্যাবরেটরি হাই স্কুল, স্ট্যামফোর্ড স্কুল অ্যান্ড কলেজ, কাকলি হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বাড্ডার আলাতুন্নেছা স্কুল অ্যান্ড কলেজসহ বেশকিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরেজমিন ঘুরে অতিরিক্ত ভর্তি ফি বাবদ অর্থ আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

একাধিক অভিভাবক অভিযোগ করে বলেন, ধানমন্ডির নন-এমপিওভুক্ত বেসরকারি প্রতিষ্ঠান স্ট্যামফোর্ড স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্লে থেকে কেজি শ্রেণিতে বেতন তিন হাজার টাকাসহ ভর্তি ফি নেয়া হচ্ছে মোট ২৮ হাজার টাকা। প্রথম শ্রেণি থেকে দশম শ্রেণি পর্যন্ত বাংলা ও ইংরেজি মাধ্যমে বেতনসহ ভর্তি ফি ৩০ থেকে ৩৩ হাজার টাকা পর্যন্ত নেয়া হচ্ছে। আবার পুনঃভর্তির ক্ষেত্রেও সমান অর্থ নেয়া হচ্ছে।

ধানমন্ডির জুনিয়র ল্যাবরেটরি হাই স্কুলেও দেখা যায় একই চিত্র। এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মিরপুরের মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের চিত্রও একই রকম। সরকারের দেয়া নীতিমালা অনুসরণ না করে সেখানেও ‘গলাকাটা’ ভর্তি ফি নেয়া হচ্ছে। স্কুলটির কয়েকজন অভিভাবক অভিযোগ করে জানান, এখানে প্রথম শ্রেণি থেকে পঞ্চম শ্রেণি পর্যন্ত ভর্তি ফি নেয়া হচ্ছে আট হাজার থেকে ১২ হাজার টাকা পর্যন্ত। এছাড়া শুধুমাত্র প্রথম শ্রেণির জন্য উন্নয়ন ফি বাবদ বাড়তি ২৫ হাজার টাকা নেয়া হচ্ছে। অন্যান্য শ্রেণিতে ফি নেয়া হচ্ছে ১৫ হাজার থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত।

সিটিজিনিউজ২৪.কম/কাইয়ুম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *